পুলিশ মংডূতে মার্কেটগামী রোহিঙ্গাদের লুট করছে

মংডূ,আরাকান।গত ২০ জুলাই থেকে পুলিশ কর্মকর্তারা যারা ব্রীজ পাহারার দ্বায়িত্বে নিয়োজিত তারা
মার্কেটগামী রোহিঙ্গাদের লুট করছে বলে জানান একজন মংডূর গ্রাম প্রশাসক।
“পুলিশ কর্মকর্তারা ব্রীজের পাশে অবস্থান গ্রহন করছেন যা ম্যম ক্যাংদান-ম থুগি গ্রামের মাঝে অবস্থিত
মংডূ-বুতিদং হাইওয়েতে”।

পুলিশ যারা নাসাকার পরিবর্তে দ্বায়িত্বপ্রাপ্ত হয়েছেন তারা মার্কেট এ যাচ্ছিলেন তাদের পরিবারের সদস্যদের জন্য কাপড়
কিনতে।পুলিশ সফরকারীর উপর ভিত্তি করে ১০০ থেকে ১০০০ ক্যত করে আদায় করছেন বলে জানান একটি সুত্র।
পুলিশ কেবলমাত্র কালিজা বাং,না ইয়ন তং,মং নামা,মিওতিগি,ফোর মাল,সামামা ও রাজাবিল রুটে চলাচলাকারী
ট্যাক্সিক্যাবগুলোকে থামিয়ে অর্থ আদায় করে যারা কোন কাগজ নিয়ে বের হন না এবং পুলিশ তাদেরকে একটি
কাগজের বিনিময়ে আরো বেশি অর্থ আদায় করেন।
রোহিঙ্গা সম্প্রদায়ের যারা কেন্দ্রীয় মংডূর পাশে বাস করেন তারা সাধারনত তাদের আইডি কার্ড ও ট্রাভেল পাস নিয়ে
বের হন না এবং পুলিশ এটি জানে বিধায় তাদের থেকে অর্থ আদায় করে বলে জানান মংডুর একজন গণমান্য ব্যক্তি।
“রমজান মাসের সময় যখন রোহিঙ্গা সম্প্রদায় মার্কেট এ যান তাদের দৈনন্দিন কাজের জন্য,তারা ঈদের কারণেও
সেখানে যান এবং তারা কখনো কাগজ নিয়ে যান না কারণ এটি কেন্দ্রের নিকটে আর পুলিশ সে সুযোগে তাদের
থেকে অর্থ আদায় করে।”
পুলিশ কেবল মংডূর নিকটের চলাচলকারী ট্যাক্সিগুলোর থেকে অর্থ আদায় করে-যে সমস্ত গাড়ি
মংডু-বুতিদং অথবা মংডু-ক্যাং চং এ যায় তাদের থেকে তারা অর্থ আদায় করেন না।

Leave a Reply