লেদা ক্যাম্পে ডায়রিয়ার প্রকট

টেকনাফ,বাংলাদেশ।ডায়রিয়া,জ্বর কাশি ও আমাশয়ের বিভিন্ন মৌসুমী অসুখে আক্রান্ত হচ্ছেন রোহিঙা
ক্যাম্পের শিশুরা বলে জানান একজন স্থানীয় ডাক্তার।
“অনেক অনিবন্ধিত রোহিঙ্গা শরনার্থী শিশু ও পূর্নবয়স্ক ব্যক্তিরা এপ্রিল এর শেষ থেকে অনেক অসুখে
আক্রান্ত হচ্ছেন।”
শরনার্থী ও শিশুরা জানান আক্রান্তদের মুসলিম এইডের মাধ্যমে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে,এছাড়া
গুরুতর অসুস্থ একজনকে কক্সবাজার জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে কিন্তু ডাক্তাররা জানান তাদের
ভাল চিকিৎসার জন্য পর্যাপ্ত বাজেট নেই।ডাক্তাররা জানেন তাদের চিকিৎসার জন্য সরকারী বরাদ্দ কম,
এছাড়া অধিকাংশ শিশু যাদের বয়স ১-৭ তারা এই সমস্ত অসুখে আক্রান্ত হচ্ছে।
লেদা ক্যাম্পের শরনার্থী কমিটির একজন সদস্য আইয়ুব জানান,বেশিরভাগ শিশু  ডায়রিয়াতে আক্রান্ত
হচ্ছেন কারণ সুপেয় পানির অভাব,এবং ২০১৩ সালের মার্চে জলাধার যা মুসলিম এইড নির্মান করেছিল
তা শুকিয়ে গিয়েছে।
নারীরা পাশের গ্রাম থেকে পানি সংগ্রহ করে আনে কিন্তু তাদের কোন নিরাপত্তা নেই কারণ বখাটেদের
হাতে উত্যক্ত ও তারা সম্ভ্রমহানীর স্বীকার হচ্ছেন।
শরনার্থীরা আরো জানান অধিকাংশ ঘরের ছাদ পুরাতন হয়ে যাবার ফলে তা পুনঃনির্মানের প্রয়োজন দেখা
দিয়েছে,মুসলিম এইড এই ব্যাপারে কোন পদক্ষেপ নেয় নি।

Leave a Reply