বার্মা বাংলাদেশ যৌথ কমিশন এর বৈঠক শূরু

চট্টগ্রাম,বাংলাদেশ।বার্মা-বাংলাদেশ অর্থনৈতিক সহযোগীতার জন্য সৃষ্ট কমিশনের ষষ্ঠ বৈঠক শনিবার
শুরু হয়েছে,যাতে উভয় দেশের মধ্যে যোগাযোগ ও বানিজ্যের হার বৃদ্ধি পায় এই ব্যাপারে সদস্যরা
আলোচনায় মিলিত হয়েছেন।
বার্মিজ সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডঃ পিন্ত সেন বার্মিজ প্রতিনিধি দলের নেতৃত্বে ছিলেন,অন্যদিকে বানিজ্য সচিব
মাহবুব আহমেদ বাংলাদেশ প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন,যা হোটেল পূর্বানীতে অনুষ্ঠিত হয়।
অফিসিয়ালরা জানান,সকাল দশটা থেকে শূরু হওয়া বৈঠকে উভয়দেশের অর্থনৈতিক সম্পর্ক জোরদার,
সাহায্যের হাত বাড়ানো ও আঞ্চলিক যোগাযোগ বৃদ্ধির উপর জোর দেওয়া হয়,এছাড়া সরাসরি বিমান
ও শিপিং সম্পর্ক  জোরদার,জ্বালানী ও কৃষি ক্ষেত্রে সহযোগীতা অগ্রাধিকার পেয়েছে।
বার্মিজ প্রতিনিধি দল বিকাল ৪টায় বাংলাদেশের বানিজ্য মন্ত্রী জি এম কাদের এর সাথে আলোচনায় মিলিত হন।
এর আগে বাংলাদেশ বার্মার কাছে মেমোরেন্ডাম অব আন্ডারস্টেন্ডিং এর খসড়া পাঠিয়েছে,যেখানে
আকাশ চলাচল ও অন্যান্য কিছু ইস্যু প্রাধান্য পেয়েছে।
বার্মা বাংলাদেশ পঞ্চম বৈঠক গত জুলাই এ না পি দ থে অনুষ্ঠিত হয়।
ব্যবসায়ী নেতারা বার্মার সাথে যোগাযোগের উপর জোর দেন এবং আকাশ,সড়ক ও পানিপথে যোগাযোগ
বাড়াতে বলেন কারণ দ্বিপাক্ষিক বানিজ্যের অনেক সুবিধা আছে বার্মার সাথে।
যদি পানিপথে চট্টগ্রামে বানিজ্য শুরু হয় তবে টেকনাফ স্থল বন্দর স্থবির হয়ে যেতে পারে এবং অনেকে
তাদের ব্যবসা হারাবেন বলে জানান আনোয়ার।
সাম্প্রতিক দাঙার ফলে দ্বিপাক্ষিক বানিজ্য নেই বললেই চলে,এবং যদি চট্টগ্রাম থেকে বানিজ্য শুরু হয়
তবে ছোট ছোট ব্যবসায়ীরা বাজার হারিয়ে ফেলবেন ও বড় বড় কোম্পানীরা বাজার দখল করে নিবে।

Leave a Reply