একজন নিহত ও আরো দুইজন আহত হয়েছে দক্ষিং মংডুতে

মংডু,আরাকান।একজন রোহিঙা গ্রামবাসী নিহত ও আরোদুইজন যাদের মধ্যে একজন নারী তারা মিলিটারী এর হাতে বিকাল ৩ টায়
আহত হয়েছেন,বলে জানান একজন আত্নীয়।
গ্রামবাসীদের মধ্যে হাফিজুল্লাহ(৪০),আলী জোহর জালাল আহমেদ ও আরাফা এর পুত্র ও বটুর প্রসুতী স্ত্রী বলে জানা গিয়েছে,
তাদের বাড়ী ৭ নং নাসাকা এর থারইয়া গনেদান গ্রামে।
সকালে এক দল আর্মি ও নাসাকা থাইই গনেদান গ্রাম গিয়ে গ্রামবাসীদের আটক এর চেষ্টা চালায় যারা তাদের মতে গ্রাম এর প্রাক্তন
চেয়ারম্যান ইউনুস এর ঘর পুড়িয়ে দিয়েছে।ইউনুস ও তার পুত্ররা নাসাকা ও আর্মির সাহায্যে গ্রামবাসীদের উপর নির্যাতন চালাচ্ছিল,
কিন্তু কে তাদের ঘর পুড়িয়ে দিয়েছে তা এলাকাবাসী জানে না বলে জানান গ্রামের একজন।
ইউনুস ও তার পুত্ররা গ্রামবাসীদের দিকে ইশারা করছে এই বলে যে তারা এর সাথে জড়িত এবং অনেক গ্রামবাসী ভয়ে থাকতে পারছেন না।”
“নাসাকা হাফিজ উল্লাহকে আটকের চেষ্টা চালায় কিন্তু সে পালিয়ে যেতে চায় এবং পথে একজন নাসাকাকে লাথিও মারে।এই সময়
পুলিশ এর গুলিতে সে মারা যায় এবং নিকটে এ থাকা জোহর ও অপরজন গুলি খায়,গুলি খেয়ে হাফিজ ঘ্টনা স্থলে মারা যায়,এবং আহতরা মৃত্যুর মুখোমখি।
এটা পরিষ্কার যে নাসাকা ও পুলিশ রোহিঙ্গাদের মারতে দ্বিধাবোধ করছে না বলে জানান গ্রামের একজন ব্যবসায়ী।

Leave a Reply