দক্ষিন মংডূতে নাসাকার হাতে একজন নিহত ।।দশজন আটক

মংডু,আরাকান।বার্মিজ নিরাপত্তা বাহিনী একজন বৃদ্ধ রোহিঙাকে হত্যা ও আরো দশজন কে দক্ষিন
মংডূর নয়াপাড়া গ্রাম থেকে গত ২০ জুন রাত ১১টা ৩০ এর দিকে গ্রেফতার করেছে।

"একজদল নাসাকা সদস্য নাসাকা ক্যাম্পের পা নং পিন গি গ্রাম এর নাসাকা ক্যাম্পে অবস্থান নিচ্ছিলেন যখন 
তিনজন রোহিঙা গ্রামের ধারে রাস্তায় বসেছিল এমন সময় তাডেড় দেখতে পেয়ে উক্ত রোহিঙারা পালিয়ে যায়,এ
সময় নাসাকা তাদের উপর গুলি ছুড়ে কারণ এটি কারফিউ এর সময় ছিল,এই সময় শব্দ শূনে আটকের ভয়ে
রোহিঙারা ঘরবাড়ী ছেড়ে পালিয়ে যায় কিন্তু আব্দুল হাকিম(৬২)-পিতা ইন্না আমিন নাসাকার হাতে গুলিবিদ্ধ
হয়ে মারা যান।
নাসাকা পরে উক্ত যুবকদের ধরার জন্য ঘরে ঘরে অভিযান চালায় এবং রাস্তার মধ্যে ও ঘরে যাকেই পেয়েছে তাকে 
গ্রেফতার করে।তাদের হাতে দশোজন আটক হয়েছে বলে জানান একজন গ্রাম প্রশাসন সদস্য।
নাসাকার হাতে আটককৃতরা হলেনঃ আব্দুল আজিজ,২৫,পিতাঃআব্দুল হাকিম,আব্দুল হামিদ,১৮,পিতা উ আব্দুল
হাকিম,মোহাম্মদ্দ রশিদ,১৫,পিতাঃউ আব্দুল হাকিম,মো রফিক,৩৫,পিতা আব্দুল আমিন,রশিদ আহমেদ,৩০ পিরা উ 
ইসহাক,ইলিয়াস,১৫,পিতাঃআবু তাহের,নুর কবির,পিতাঃআবু তাহের,নুর কামাল,পিতাঃউ আবু তাহের,আমান উল্লাহ,২২,পিতাঃআব্দুস
শুক্কুর,সলিম উল্লাহ পিতা ফজল।
আটককৃতদের নাসাকা ক্যাম্পে আটক করে রাখা হয় ,যেখানে মৃতদেহ নাস্কা কর্মকর্তারা তাদের ক্যাম্পে নিয়ে যায়।
পরে তা মংডূ জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয় ও আটক কৃতদের মংডূ থানাতে সোর্পদ করা হয়।এই খবর লিখা
পর্যন্ত পরিবারের কাছে মৃতদেহ হস্তান্তর করা হয় নি।
নাসাকা কর্মকর্তারা গ্রেফতার পরোয়ানা নিয়ে রোহিঙাদের থেকে অর্থ আদায় করছে এবং রোহিঙা গ্রামগুলোতে তারা আগুন ধরিয়ে
দিচ্ছে,এছাড়া তারা রোহিঙা তরূনী ও যুবতীদের ধর্ষন করছে।
১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে কেবল রোহিঙ্গাদের জন্য এবং রাখাইন ও বার্মিজরা এর আওতায় পড়েন না,রোহিঙাদের আটক
ধর্ষন ও লুট করা হচ্ছে।

Leave a Reply