মনবা উপজেলাতে আগুন

মনবা,আরাকান।রাখাইন দুষ্কৃতিকারীরা মনবা গ্রামের প্রায় ২০টি রোহিঙা ঘর পুড়িয়ে
দিয়েছে ,এতে পাঁচজন মারা যান এবং আরো অনেকে আহত হন,এছাড়া কোন নিরাপত্তা

বাহিনী গ্রামবাসীদের নিরাপত্তা দিচ্ছে না,পিক তা গ্রাম যা জেলে পাড়া নামে পরিচিত তা
রাখাইন দুষ্কৃতিকারীরা করণ ছাড়া হামলা করে।একজন স্থানীয় জিজ্ঞাসা করেন,"এই দাঙা
কি অচলাবস্থা সৃষ্টি ও রোহিঙাদের নিধনের জন্য করা হচ্ছে?
অনেক বিশ্ব নেতা বার্মাতে গিয়ে তাদের নেতাদের সাথে আরাকানে রোহিঙ্গাদের অবস্থা
নিয়ে আলোচনা করলেও তাদের মনোভাবের কোন পরিবর্তন দেখা যাচ্ছে না।এখন পর্যন্ত
রাখাইন দুষ্কৃতিকারীদের সাথে নিরাপত্তা বাহিনীর সহযোগীতায় অনেক রোহিঙা গ্রাম ও সম্পত্তি
লূট করা হয়েছে।
"আজ সকাল সাড়ে দশটার দিকে রাখাইন দুষ্কৃতিকারীরা রোহিঙা গ্রাম-পাইক মং ও ইয়েত তক 
এ আগুন ধরিয়ে দেয়-এবং তাদের হাতে রোহিঙাদের প্রানহানি ঘটছে,কিন্তু নিরাপত্তা বাহিনী
এখানে কোথায়?
এছাড়া মনবা উপজেলাতে রাখাইন দুষ্কৃতিকারীরা রোহিঙ্গাদের গ্রাম ঘিরে রেখেছে ও সেখানে আগুন 
ধরিয়ে দিচ্ছে,এখন পর্যন্ত সেখানে অস্থিতিশীল অবস্থা বিদ্যমান আছে।
একজন স্থানীয় নেতা জানান,সকালে মারুক ইউ উপজেলাতে বাউলি পাড়া গ্রামের প্রায় ১৫০
ঘর পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।
এছাড়া পকতু গ্রামে সকাল দশটার দিকে রাখাইন দুষ্কৃতিকারীরা ৩ ও ৪ নং ওয়ার্ড ঘিরে রেখেছে 
ও আগুন দেওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে জানান একজন স্থানীয় ব্যবসায়ী।
রাখাইন সম্প্রদায় মিলিটারী সর্মথিত সরকার থিন সেন এর সাহায্য ও অনুপ্রেরনায় আরাকান থেকে
রোহিঙাদের উচ্ছেদের চেষ্টা চালাচ্ছে।
এখন এটি পরিষ্কার যে,কোন ইউএস,ইউকে,ইইউ,ওআইসি ও আসিয়ান বার্মাতে গনহত্যা বন্ধের
ব্যাপারে কোন ব্যবস্থা নিবে না ।রোহিঙাদের পরিস্থিতি খুব শীগ্রই উন্নত হওয়ার কোন সম্ভাবনা নেই 
বলে জানান একজন আরাকান নেতা।

Leave a Reply