দক্ষিন মংডুতে নিপীড়ন বেড়েছে

মংডূ,আরাকান।দক্ষিন মংডুতে গত ৩০ সেপ্টেম্বর থেকে রোহিঙাদের বিরূদ্ধে নিপীড়ন বেড়েছে বলে জানান একজন
স্থানীয়,যিনি তার নাম প্রকাশে বিরত থাকেন।

গত ৩০ সেপ্টেম্বর সকালে একদল আর্মি,সারাপা ও নাসাকা ও স্থানীয়দের সাথে হরসারাওনা ও লাম্বাগনা গ্রামে গিয়ে
গ্রামবাসীদের আটকের চেষ্টা করে,গ্রামবাসীরা পালিয়ে গেলে নিরাপত্তা বাহিনী ৩০ জন নারী যাদের মধ্যে মিসেস
মাদানী ও আছেন, এবং ঘরবাড়ী লুট করে অর্থ,স্বর্ন ও কাপড় নিয়ে যায়।তারা ৩৫টি গরু ও ৪০টি ছাগল নিয়ে যায়,এছাড়া
আরো ৪০ ঘরে ঢুকে চুলো,থালা বাসন নষ্ট করে ও নতুন গুলো নিয়ে যায়,তারা কিছু গ্রামবাসী যাদের মধ্যে ফজল হক ও
আছেন তাদের নাসাকা ক্যাম্পে নিয়ে আসেন,নাতালা গ্রামবাসীরা এই সময় তলোয়ার নিয়ে দাড়িয়ে ছিল।
এছাড়া একই দল মারুল্লা পাড়াতে গিয়ে আটটি পরিবারের লিস্ট নাসাকা দখল করে এবং নারী সদস্যদেরকে বলা হয়,
তাদের স্বামীরা ফেরত আসলে অর্থ দিয়ে এগুলো ফেরত নিতে।
এছাড়া তারা সারকম্বো গ্রামে গিয়ে ফজল আহমেদ(৪৫)কে গ্রেফতার করে,এছাড়া তারা নারী গ্রামবাসীদের মারধোর
করে কারণ তারা তাদের স্বামীদের পায় নি।
এছাড়া একজন নারী যিনি নাসাকাকে তার তিন গরু দখল করে নিয়ে যেতে দেয় নি
তাদের মারধর করে, এছাড়া তারা আরো ৭টি গরু নিয়ে যায় গ্রাম থেকে।
এছাড়া নিরাপত্তা বাহিনী কুন্না পাড়া গ্রামে এসে গ্রামবাসীদের আটক করার চেষ্টা চালায় এবং নারীদের অপমান করে ও
কিছু গ্রামবাসীকে আটক করে বলে জানান একজন তরুন।
এছাড়া গ্রামবাসীরা জানান বলিবাজার আর্মি ক্যাম্পে ৩০০ জন রাখাইন তরূনকে ট্রেনিং দেওয়া হচ্ছে এবং পরে
তাদেরকে রাখাইন গ্রামে মোতায়েন করা হবে,অস্ত্রও প্রদান করা হবে,এই খবরে রোহিঙ্গারা ভয়ে জীবনযাপন করছে।

Leave a Reply