মংডুতে রোহিঙ্গা জেলেকে মারধোর এর জন্য তিন জন রাখাইনকে আটক করেছে নাসাকা

মংডূ,আরাকান।বার্মিজ সীমান্তরক্ষী বাহিনী নাসাকা তিনজন রাখাইনকে আটক করেছে ইয়াওনতং গ্রাম থেকে
বলে জানান একজন একজন কর্মকর্তা।উক্ত তিন রাখাইন রোহিঙা জেলেদের মারধোর করত বলে জানা যায়।
১২ নং আউটপোস্ট ক্যাম্পের নাসাকা কর্মকর্তারা খবর পায় যে একদল রাখাইন তিনজন রোহিঙ্গা জেলেকে
মারধোর করছে,পরে নাসাকাকে গ্রাম প্রশাসক এই খবর পাঠালে তারা ঘটনাস্থলে পৌঁছে  ব্যবস্থা নেয়।
নাসাকা কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে পৌছে তিন জন রাখাইনকে আটক করে এবং বাকিরা পালিয়ে যায়,জানান একজন গ্রাম
প্রশাসক কর্মকর্তা।
নাসাকা আটককৃত রাখাইনদের ১২ নং আউটপোস্ট ক্যাম্পে আটক করে রেখেছে,যার মধ্যে ২ জন বাংলাদেশ
ও অপরজন রতিদং এর।
এছাড়া কতৃপক্ষ আরো জানায়,বাংলাদেশ থেকে কতজন রাখাইন মংডুতে প্রবেশ করছে সে সম্পর্কে নিরাপত্তা বাহিনীর
কোন পরিসংখ্যান নেই,এছাড়া অন্যান্য শহর থেকে মংডুতে আসা রাখাইনদের কোন সংখ্যা জানা যায় নি।
এখন এটি পরিষ্কার যে,বাংলাদেশ থেকে বার্মাতে রাখাইনরা প্রবেশ করছে রোহিঙ্গারা না।
এছাড়া অভিবাসন মন্ত্রী উ কিন ইয়ে কেএনইউ ও থিন সেন সরকারের সাথে বৈঠকে জানান আরাকান রাজ্যে রোহিঙারা
অনুপ্রবেশ করছে না এবং অধিকাংশ অভিবাসন কর্মকর্তা রাখাইন।
আরাকানের অভিবাসন কর্মকর্তারা রাখাইন হলে সেখানে কিভাবে রোহিঙাদের প্রবেশ করা ও জাল আইডি কার্ড রাখা
সহজ।বাংলাদেশের রাখাইনদের ক্ষেত্রে হয়ত এটি সহজ কারণ অধিকাংশ অফিসার রাখাইন,আর যেখানে রোহিঙারা
আরাকানে এত বাধার সম্মুখীন হচ্ছে সেখানে বাংলাদেশের কেউ প্রবেশ করতে চাইবে না, তারা অন্য দেশ মধ্য প্রাচ্য
ও মালেয়শিয়াতে যাবে কাজের জন্য,যেখানে রোহিঙ্গাদের জন্য কোন চাকরি নেই,সেখানে কিভাবে বাংলাদেশের মানুষ
আসবে ও এরকম জেলের ন্যায় পরিবেশে  বাস করবে?

Leave a Reply