দক্ষিন মংডূতে আরো রোহিঙ্গা গ্রামবাসী আটক

মংডু,আরাকান।নাসাকা(বার্মিজ সীমান্ত রক্ষী বাহিনী) দক্ষিন মংডুতে রোহিঙ্গাদের উপর নির্যাতন অব্যাহত রেখেছে ,এছাড়া
তারা বিনা অভিযগে রোহিঙ্গাদের আটক করছে,সম্প্রতি তারা রোহিঙ্গাদের আটক করা শূরু করেছে এই অভিযোগে যে,
গত ৮ জুন হতে শূরু হওয়া সংঘর্ষে রোহিঙাদের হাত ছিল।
মংডুর ৮ নং এরিয়ার  উ দং গ্রাম হতে নাসাকা কয়েকজন রোহিঙ্গাকে আটক করে ক্যাম্পে নিয়ে যায়,সেখানে তাদের উপর অমানবিক নির্যাতন চালানো হয়।
আটককৃতদের মধ্যে নুর আহমদের পুত্র মৌলভী আব্দুল মোতালেব(৪০),বদরুল এর পুত্র সেলিম উল্লাহ(৪৫),সেলিম
উল্লাহ এর পুত্র মুজিব উল্লাহ(২০),কাশিম এর পুত্র ইলিয়াস(৪৩),ইব্রাহিম এর পুত্র নুর কামাল(১৮),লাল মিয়ার
পুত্র রহমত উল্লাহ(২৫),আমিন এর পুত্র লেটা(৩০),ফজল এর পুত্র জাহিদ হুসেইন,আহমেদ হুসেইন এর পুত্র মৌলভী
আনোয়ার(৭০),আব্দুল করিম এর পুত্র লাল মিয়া(৫৫),তাজু মুল্লুক এর পুত্র নুর মোহাম্মদ(৫৫),লাল মিয়ার পুত্র
আজিজ রহমান(৫০),লেটা(৫০) ও আজিম আলী(৬০)।তারা সকলেই উদং গ্রামের বাসিন্দা এবং তাদেরকে নাসাকা
অমানবিক নির্যাতন চালানোর পর মুক্তির জন্য প্রচুর অর্থ দাবি করেছে।
“৬ জন রোহিঙ্গাকে মুক্তি দেওয়া হয়েছে যাদের থেকে ২০০০০০ থেকে ৪৫০০০০ ক্যত পর্যন্ত আদায় করা হয়েছে।”
এছাড়া গত কাল রাত্রে আরো চারজন রোহিঙ্গাকে উদং নাসাকা আউটপোস্ট ক্যাম্প এর নাসাকা সদস্যরা গ্রেফতার
করে ক্যাম্পে আটক করে রেখেছে,আটককৃতরা হলেনঃ ইসমাইল এর পুত্র শামসু(২৫),মৌলভী হাসিম এর পুত্র ইমরান(২২),আব্দুল্লাহ এর পুত্র মৌলভী নাজিম উল্লাহ(২৭),আফজু রহমান(২২)।তারা সবাই উদং গ্রাম এর বাসিন্দা।নাসাকা
তাদের থেকে অর্থ খুজলে তারা তা দিতে অস্বীকৃতি জানায়।পরে তাদের আটক করে নির্যাতন করা হয়।
সম্প্রতি মুক্তিপন দিয়ে ছাড়া পাওয়া একজন জানান,”আটককৃতদের উপর নির্যাতন চালানো হয় ,এমনকি নাসাকার মল তাদের শরীরে লাগানো হয়।”
উত্তর আরাকানের অবস্থা এখনও খারাপ এবং তার কোন পরিবর্তন হচ্ছে না,নাসাকা রোহিঙ্গাদের আটক করে অর্থ আদায় অব্যাহত রেখেছে,এবং আর্ন্তজাতিক চাপের মাঝেও বার্মিজ সরকার কোন ব্যবস্থা নিচ্ছে না,রোহিঙ্গাদের বিরূদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছে প্রশাসন তাদের যেমন ইচ্ছা সেরকম ব্যবহার করা হচ্ছে রোহিঙ্গাদের সাথে,অভিমত প্রকাশ করেন একজন স্থানীয় রোহিঙ্গা নেতা।

Leave a Reply