মংডূতে ঈদের নামাজ আদায় করা হয় নি

মংডূ,আরাকান।মংডুর কতৃপক্ষ -শহর ওজেলা প্রশাসক রোহিঙ্গা নেতাদের ডেকে পাঠান  এবং তাদের তিন দিনের জন্য
নামাজ পড়ার অনুমতি দিয়েছে বলে জানানো হয়েছে।”আমরা ঈদের নামাজ  পড়তে যায় নি যদিও কতৃপক্ষ বলেছে
যে আমরা নামাজ পড়তে পারব তবে কেবল মংডু জুমা মসজিদ ও মিওমা কংদাং এ এরূপ হবে না”।
“আজকে কতৃপক্ষ বলেছে আমরা মসজিদে পড়তে পারব তবে কিছু জিনিস আমাদের মেনে চলতে হবে,যেমন আমরা
মাইক ব্যবহার ও খুতবা দিতে পারব না,এবং মংডূ জুমা মসজিদ ও মাঊরকুতে আম্রা আদায় করতে পারব না নামাজ।”
কতৃপক্ষ আর্ন্তজাতিক সম্প্রদায়কে দেখাতে চাচ্ছে যে এখানে কোন ধর্মীয় বিধি নিষেধ নেই,কতৃপক্ষ প্রথমে কেবল ঈদের
নামাজের জন্য অনুমতি দিলে পরে যখন দৈনিক নামাজ আদায়ের জন্য আমরা অনুমতি চাইলাম তখন কেবল তিন দিন দুই ওয়াক্তের জন্য নামাজ আদায়ের অনুমতি দেওয়া হয়েছে,মাগরিব এশা ও ফজরের নামাজের অনুমতি দেওয়া হয় নি।”
“আমরা নামাজের অনুমতির দরকার নেই ,আমরা পূর্বেও মসজিদে নামাজ আদায় না করে থেকেছি এবং ঘরে আদায়
করেছি এবং এখনও করব,শুধু তিন দিনের জন্য মসজিদে গিয়ে নামাজ আদায়ের কোন দরকার নেই।”
প্রেসিডেন্ট থিন সেন গত ৯ আগস্ট সফরকারী তুর্কি পররাষ্ট্রমন্ত্রী মিঃআহমেদ দাবুতিলুকে রোহিঙাদের উপর নির্যাতনের
বিচারের দাবিতে ওআইসি এর দাবিকে সবুজ সংকেত দিলেও এখন আবার তিনি পিছু হটেছেন।তিনি বলেছেন এখানে
আর্ন্তজাতিক হস্তক্ষেপের দরকার নেই এবং বার্মিজ সরকার এটা তদন্ত করতে পারবে।”
বার্মিজ সরকার অনুসন্ধান কমিটির সভাপতি হিসেবে আছেন ডঃ ম মিন্ত যিনি পূর্বে ধর্মীয় মন্ত্রনালয়ের সচিব ছিলেন,
ডঃ কাউ ইয়িন লাং কমিটির মহাসচিব হিসেবে আছেন,এছাড়া মোট ২৭ জন সদস্যের মধ্যে আরো আছেন
ধর্মীয় নেতা,আর্টিস্ট ও পূর্বে অধিবাসীরা মূল কারণ খুজে বের করবেন বলে জানায় সরকারী মূখপাত্র নিউ লাইট অব
মিয়ানমার।”
“স্বাধীণ কমিশন দেশের অভ্যন্তরে গঠন করা হয়েছে যা প্রমান করে যে আমরা সঠিক পথে দেশকে পরিচালিত
করতে পারি।”-জানান আই মং ,যিনি রাখাইন উন্নয়ন দলের প্রধান জানায় এএফপি।

Leave a Reply