আগস্ট ১২ এর মংডূ এর সর্বশেষ সংবাদ

সহকারী ইন্সপেক্টর আ তুন সেন ও তার গ্রুপ ফজল এর পুত্র এনায়েত উল্লাহকে নুরুল্লাহ পাড়া থেকে
আরো চার জন এর সাথে গ্রেফতার করে যখন তারা সকালে মার্কেটে যাচ্ছিল।
পুলিশ কর্মকর্তা রোহিঙাদের সুপারস্টার বোর্ডিং এ  ক্লকটাওয়ার জাংশনে অবস্থিত ,সেখানে রাখে
এবং জনপ্রতি ৫০০০০০ ক্যত করে দাবি করে,কিন্তু যখন কর্মকর্তারা ছিলেন না তখন রোহিঙ্গারা
সেখান থেকে পালিয়ে যায়।উক্ত জায়গা এখন ক্লক টাওয়ার জাংশনে রোহিঙ্গাদের থেকে অর্থ
আদায়ের নতুন জায়গাতে পরিনত হয়েছে।
আয়ুব(৪২),আব্দুস সোবহান এর পুত্র যিনি পাওয়েত চান গ্রাম যা নাসাকা এরিয়ে ৫ এর অর্ন্তভূক্ত
তাকে গ্রেফতার করে যখন তিনি রোহিঙা গ্রামে যাচ্ছিলেন সকাল দশটার দিকে।রাখাইন গ্রামবাসীদের
সহায়তায় তাকে গ্রেফতার করা হয় এবং এই লেখা শেষ হওয়া পর্যন্ত তাকে ছাড়া হয় নি।সে কোন
খারাপ কাজে জড়িত নয় বলে জানান একজন ব্যবসায়ী।
এছাড়া সকাল সাড়ে দশটার দিকে লুন্ঠিন যারা পুরাতন সিনেমা হলে অবস্থান নিয়েছে তারা মোহাম্মদ হাকিম(৬০)
কে মারধোর করে যখন তিনি খাদ্য দ্রব্য কিনে বাড়ি ফিরছিলেন,তাকে এই অবস্থায় দেখে স্থানীয়রা
এগিয়ে আসে এবং তাকে রক্ষা করে ক্লিনিকে পাঠান চিকিৎসার জন্য জানান নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন
গ্রামবাসী।
এছাড়া লুন্ঠিন ও নাসাকার অধিকাংশ সদস্য রাখাইন সম্প্রদায়ের এবং তারা রোহিঙ্গাদের বিরূদ্ধে অন্যায় করতে
পিছপা হন দুই পক্ষের মধ্যে এই দাঙায় তারা রোহিঙ্গাদের থেকে অর্থ আদায় ও মারধর ও আটকের নতুন উপায় খুজে পেয়েছেন।মংডুর একজন তরুণ জানান ,”পুলিশ ও লুন্ঠিন অনেক খুশি কারন তারা রোহিঙ্গাদের থেকে
অর্থ আদায় ও আটক করতে পারছে কিন্তু পূর্বে তারা তা পারত না শূধু নাসাকা পারত।

Leave a Reply