বার্মাকে রোহিঙাদের নাগরিক অধিকার নিশ্চিত করতে বলা হয়েছে

চট্টগ্রাম,বাংলাদেশ।বাংলাদেশের কর্মকর্তারা এমনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল এর সাথে একমত হয়ে
বার্মাকে অনুরোধ জানিয়েছে যাতে রোহিঙ্গাদের নাগরিক অধিকার নিশ্চিত করা হয়,উল্লেখ্য
রোহিঙ্গারা রাখাইন রাজ্যে শত শত বছর ধরে বাস করছে বলে জানান বাংলাদেশের কর্মকর্তারা।
লন্ডন হতে পরিচালিত এআই ইয়াঙুনকে অনুরোধ করেছে যাতে ১৯৮২ সালের নাগরিক আইন
পরিবর্তন করা হয় এবং রোহিঙাদের যাতে আর রাষ্ট্রহীন থাকতে না হয়।
পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের একজন সিনিয়র কর্মকর্তা জানিয়েছেন যে,এআই তাদের দাবির বহিঃপ্রকাশ
ঘটিয়েছে যা তারা যুগ যুগ ধরে করে আসছেন।
জেনারেল নি বিন কতৃক ১৯৮২ সালে জারি করা এই আইন মিয়ানমার নাগরিক অধিকার
ও আর্ন্তজাতিক আইনের সাথে সঙ্ঘতিপূর্ন নয় বলে জানিয়েছে মানবাধিকার গ্রুপ।
এআই এর অনুরোধ এসেছে এমন সময়ে যখন মিয়ানমার এর নতুন সংসদ অধিবেশন শুরু হয়েছে
পররাষ্ট্রমন্ত্রী দীপু মনি গত ১৮ জুলাই মিয়ানমারকে অনুরোধ করেন করেন যাতে তারা শত ও হাজার
নিবন্ধিত ও অনিবন্ধিত শরনার্থীদের বাংলাদেশ থেকে ফিরিয়ে নেন।
এমনেস্টির মিয়ানমার বিষয়ক গবেষক বেঞ্জামিন যাওয়েকি বলেছেন যে,আর্ন্তজাতিক আইন অনুযায়ী
কেউ রাষ্ট্রহীন থাকতে পারে না।
বহুদিন ধরে মিয়ানমার এর মানবিধাকার লঙ্ঘন হচ্ছে বিশেষ করে রোহিঙা পরিস্থিতি নিয়ে জানায়
উক্ত সুত্র।
রোহিঙ্গাদের দীর্ঘদিনের দাবি পুনরায় প্রকাশিত হয়েছে যখন আরাকান রাজ্যে সাম্প্রদায়িক দাঙার
ফলে প্রচুর মানুষ মারা গিয়েছে যার অধিকাংশ রোহিঙ্গা এবং মিয়ানমার সরকারের গত ১০ জুন
জরুরী অবস্থা জারির ফলে নাসাকা ও পুলিশ রোহিঙ্গাদের গন গ্রেফতার করছে।
মিঃ যাওয়াকি বলেন জরুরী অবস্থা জারি করে মানবাধিকার লঙ্ঘন এর কোন মানে হয় না,নিরাপত্তা
বাহিনীর যেখানে নিরাপত্তা দেওয়া উচিত সেখানে তাদের হাতে নির্যাতন মানায় না এটা মানবাধিকার
লঙ্ঘন।
উক্ত বক্তব্যে আরো বলা হয়,একশ জনের বেশি রোহিঙাকে আটক রাখা হয়েছে গোপন স্থানে এবংতাদের
উপর নির্যাতন করা হচ্ছে জানায় উক্ত বক্তব্য।

Leave a Reply